empty
 
 

12.05.202207:10:00UTC+00প্রথম প্রান্তিকে যুক্তরাজ্যের জিডিপি মন্থর হয়েছে

বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যের জাতীয় পরিসংখ্যান অফিস কর্তৃক প্রকাশিত তথ্যে দেখা গেছে যে, দেশটির অর্থনীতি প্রথম প্রান্তিকে মন্থর গতিতে সম্প্রসারিত হয়েছে। যুক্তরাজ্যের জিডিপি বা মোট দেশজ উৎপাদন ক্রমান্বয়ে 0.8 শতাংশ অগ্রসর হয়েছে, যা গত বছরের চতুর্থ প্রান্তিকের 1.3 শতাংশ বৃদ্ধির চেয়ে কম। অর্থনীতিবিদরা জিডিপি 1.0 শতাংশ অগসর হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছিলেন৷ ব্যয়ের দিক থেকে, রেস্তোরাঁ এবং হোটেলগুলোতে ব্যয়ের কারণে পারিবারিক ব্যয় 0.6 শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। অন্যদিকে, স্বাস্থ্যখাতের ব্যয়ে বড় ধরনের পতনের কারণে সরকারি খরচ ১.৭ শতাংশ কমেছে। পণ্য এবং পরিষেবা খাতে বাণিজ্য ঘাটতির কারণে প্রথম প্রান্তিকে দেশটির জিডিপি নামমাত্র 5.3 শতাংশে পৌঁছেছে, যা মূলত পণ্য আমদানির তীব্র বৃদ্ধির প্রতিফলন করছে। প্রথম প্রান্তিকে দেশটি গ্রস ফিক্সড ক্যাপিটাল ফরম্যাশন বা মোট নির্ধারিত মূলধন প্রবাহ 5.4 শতাংশ বেড়েছে। এটি সরকারী বিনিয়োগের বৃদ্ধিকে প্রতিফলিত করে, বিশেষ করে অন্যান্য ভবন এবং কাঠামোতে। ফেব্রুয়ারিতে কোনো প্রবৃদ্ধি না হওয়ার পর মার্চে জিডিপি ০.১ শতাংশ কমেছে। পরিষেবা খাতের প্রবৃদ্ধি 0.2 শতাংশ হ্রাস পাওয়ায় এরূপ ফলাফল এসেছে। মার্চ মাসেও ০.২ শতাংশ উৎপাদন কমেছে। এই পতন আংশিকভাবে নির্মাণ খাত দ্বারা প্রভাবিত হয়েছে, যা 1.7 শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। তা সত্ত্বেও, মাসিক যুক্তরাজ্যের জিডিপি এখন প্রাক-করোনাভাইরাস মহামারী স্তরের চেয়ে 1.2 শতাংশ বেশি। ক্যাপিটাল ইকোনমিক্সের অর্থনীতিবিদ পল ডেলস জানিয়েছেন যে, অর্থনৈতিক মন্দার ঝুঁকি আরও বেড়েছে, যদিও মূল্যস্ফীতির শক্তিশালী চাপের অর্থ ব্যাংক অফ ইংল্যান্ড সম্ভবত সুদের হার আরও বাড়াবে। ওএনএসের আরেকটি প্রতিবেদনে দেখানো হয়েছে যে মূল্যবান ধাতু ব্যতীত পণ্যের ঘাটতি প্রথম প্রান্তিকে GBP 19.6 বিলিয়ন থেকে বেড়ে GBP 62.2 বিলিয়ন হয়েছে। পণ্যের আমদানি 15.2 শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং রপ্তানি 0.3 শতাংশ কমেছে৷



এখন কথা বলতে পারবেন না?
আপনার প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করুন চ্যাট.