empty
 
 
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-চীনের বাণিজ্য যুদ্ধ ক্ষতির বদলে মুনাফা নিয়ে আসছে

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-চীনের বাণিজ্য যুদ্ধ ক্ষতির বদলে মুনাফা নিয়ে আসছে

যদিও বিশ্লেষকরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-চীনের বাণিজ্য যুদ্ধ বৈশ্বিক অর্থনীতিতে ক্ষতি এবং ধ্বংস বয়ে নিয়ে আসবে বলে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন, তবে বাস্তবিক অর্থে পরিস্থিতি আরও ভাল হয়েছে। স্পষ্টতই, এই বাণিজ্য যুদ্ধের মাত্রা লোকসানের জন্য যথেষ্ট না হলেও কিন্তু মুনাফা অর্জনের জন্য যথেষ্ট ছিল। ন্যাশনাল ব্যুরো অফ ইকোনমিক রিসার্চ এবং বিশ্বব্যাংক পরিচালিত সর্বশেষ সমীক্ষা অনুসারে, যুক্তরাষ্ট্র-চীনের বাণিজ্য যুদ্ধ অন্যান্য দেশের রপ্তানি উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করেছে।

বিশ্লেষকরা আবিষ্কার করেছেন যে বিশ্বের দুটি বৃহত্তম অর্থনীতির মধ্যকার দ্বন্দ্ব বাজারকে ক্ষতিগ্রস্ত তো করেইনি, বরং, অন্যান্য দেশগুলোর সরবরাহ শৃঙ্খল প্রসারিত করতে সহায়তা করেছে। উদাহরণস্বরূপ, চীন এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাদে 50টি শীর্ষস্থানীয় তেল রপ্তানিকারক দেশের মধ্যে 48টি দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য দেশে রপ্তানি বাড়িয়েছে, শুধুমাত্র চীনে সরবরাহ কমিয়েছে। উন্মুক্ত অর্থনীতির দেশগুলিতে সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগের ব্যাপক প্রবাহ এবং অন্যান্য রাষ্ট্রের সাথে হওয়া বাণিজ্য চুক্তিগুলি বাণিজ্য যুদ্ধের ইতিবাচক ফলাফল বয়ে এনেছে। তাছাড়া, ওয়াশিংটনের ক্ষেত্রেও নেতিবাচক পূর্বাভাস সত্য হয়নি। মার্কিন কর্তৃপক্ষ চীনা ইলেকট্রনিক্স এবং বিভিন্ন পণ্যের উপর শুল্ক বৃদ্ধি করেনি। বাজারে এই চীনা কোম্পানিগুলোর শেয়ারের পরিমাণ প্রায় 80-90%।

ইতিপুর্বে, অর্থনীতিবিদরা হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে বাণিজ্য যুদ্ধ বিশ্ব বাজারে মারাত্মক হুমকির কারণ হতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা বিনিয়োগের উপর বাণিজ্য যুদ্ধের নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে পূর্বাভাস দিয়েছিল। অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (ওইসিডি) আসন্ন মন্দা নিয়ে চিন্তিত ছিল। তবে, কখনও কখনও, বিশ্লেষকগণ তিলকে তাল বানান।

পিছনে

See also

এখন কথা বলতে পারবেন না?
আপনার প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করুন চ্যাট.