Support service
×

অধ্যায় ২- ফরেক্স অংশগ্রহণকারীগণ

ফরেক্সে ট্রেডিং শুরু করার আগে বৈশ্বিক মুদ্রা বিনিময় বাজারে একজন স্বতন্ত্র বিনিয়োগকারী কি ভূমিকা পালন করে তা বোঝা অত্যাবশ্যক। ফরেক্সে অংশগ্রহণকারীদের ধরন এবং সেইসাথে বাজারে তাদের প্রভাব সম্পর্কে জ্ঞান, মুদ্রার হার কীভাবে পরিবর্তিত হয় তা আপনাকে আরও ভালভাবে বুঝতে সাহায্য করবে। মুদ্রা বাজারের অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে লেনদেনের কিছুটা সরলীকৃত পদ্ধতি নিচে প্রদান করা হয়েছে।

ব্রোকারেজ সংস্থাসমূহ বৈদেশিক মুদ্রা বাজারে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করে। ব্রোকাররা অন্যান্য প্রধান ফরেক্স প্লেয়ারদের মধ্যেও মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করে। বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহ হলো প্রধান ফরেক্স অংশগ্রহণকারী। তারা মধ্যস্থতাকারী ছাড়াই তাদের গ্রাহকদের পক্ষে ক্রয়/বিক্রয় চুক্তি পরিচালনা করার অধিকারী। এই ধরনের লেনদেন ব্রোকারেজ কোম্পানির মাধ্যমে অথবা অন্য ব্যাংকের সাথে সরাসরি করা যেতে পারে যদি তাদের বিনিময় হারের বিষয়ে কোনো চুক্তি হয়। এটি সহযোগিতার একটি সরলীকৃত পদ্ধতি: বাণিজ্যিক ব্যাংকের ডিলিং ডিপার্টমেন্ট একটি ব্রোকারেজ কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করে এবং এই মুহূর্তে অন্যান্য ব্যাংকগুলো প্রদত্ত চুক্তির শর্তাবলী সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করে। যদি চুক্তির শর্তাদি উভয়পক্ষের জন্য উপযুক্ত হয়, তাহলে ব্যাংকগুলো একটি চুক্তি সম্পাদন করে ব্রোকারেজ কোম্পানির মাধ্যমে, যারা কমিশন থেকে লাভ করে (সম্পাদিত চুক্তির শতাংশ)। সুতরাং, ব্রোকারেজ সংস্থাগুলো এমন একটি জায়গা হিসাবে কাজ করে যেখানে মুদ্রার হার নির্ধারিত হয়। বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো ব্রোকারেজ কোম্পানির কাছ থেকে হারের মাত্রা সম্পর্কে তথ্য পায়।

বিভিন্ন দেশের জাতীয় ব্যাংক হলো অন্যান্য প্রধান ফরেক্স অংশগ্রহণকারীগণ। এই অংশগ্রহণকারীরা তাদের মূলধন বাড়ানোর জন্য নয় বরং তাদের জাতীয় মুদ্রার বিনিময় হারের স্থিতিশীলতা মূল্যায়ন করতে বা বর্তমান মুদ্রানীতি সামঞ্জস্য করতে বাজারে প্রবেশ করে। তাদের কার্যক্রম আড়ালে রাখতে, জাতীয় ব্যংকগুলো নিজে সরাসরি না করে, প্রায়সই এক বা একাধিক বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে চুক্তি সম্পাদন করে থাকে। উন্নত দেশের জাতীয় ব্যাংকগুলো অভিন্ন লক্ষ্য অর্জনের জন্য ঐক্যবদ্ধ হতে পারে।

উপরে উল্লিখিত সকল ফরেক্স খেলোয়াড় হলো সক্রিয় অংশগ্রহণকারী। তারা শুধুমাত্র ফরেক্স মার্কেটে চুক্তি লেন-দেন করেনা বরং তাদের নিজস্ব কোটও প্রস্তাব করে থাকে। সাধারণত, সক্রিয় অংশগ্রহণকারীরা মার্জিন ট্রেডিং ব্যবহার না করে, লক্ষ লক্ষ মার্কিন ডলার দিয়ে চুক্তি সম্পাদন করে। এদেরকে বাজার নির্মাতাও বলা হয়। এছাড়াও, পরোক্ষ মার্কেট অংশগ্রহণকারীরা আছে যারা কোট নির্ধারণ করে না, কিন্তু শুধুমাত্র সক্রিয় অংশগ্রহণকারীদের প্রদত্ত কোটের বিপরীতে চুক্তি লেন-দেন করে থাকে।

বিভিন্ন বিনিয়োগ তহবিলকেও প্যাসিভ অংশগ্রহণকারী ধরা হয়। এই ধরনের সংস্থাগুলো তাদের অর্থ বিভিন্ন দেশের সরকারি এবং কর্পোরেশনের সিকিউরিটিগুলোতে বিনিয়োগ করে, এবং অনুমানের উপর ভিত্তি করে অর্থ উপার্জন করে। জর্জ সোরোসের কোয়ান্টাম ফান্ড হল অন্যতম বিখ্যাত বিনিয়োগ তহবিল। বিনিয়োগ তহবিলের হাতে কয়েক বিলিয়ন মার্কিন ডলারও থাকতে পারে। এছাড়াও, তারা ঋণ করেও বিলিয়ন ডলার তহবিলে সংগ্রহ করতে পারে। অতএব, বিনিয়োগ তহবিল জাতীয় ব্যাংকগুলোর হস্তক্ষেপ বাধাগ্রস্থ করতে পারে।

অন্য ধরনের প্যাসিভ মার্কেট প্লেয়ার হলো বিদেশী ট্রেডে অংশগ্রহণকারীগণ, যেমন ঐসব কোম্পানি যারা  পণ্য রপ্তানি বা আমদানি করে। যদি কোনো আমদানি বাণিজ্য বৈদেশিক মুদ্রায় সম্পাদিত হয়, তাহলে চুক্তিটি সম্পাদিত হওয়ার আগে এই মুদ্রাটি কেনা হয়। আবার, যদি বৈদেশিক মুদ্রায় একটি রপ্তানি চুক্তি করা হয় তবে এই মুদ্রাটি চুক্তি সম্পাদনের পরে বিক্রি করতে হয়। এই ধরনের কার্যক্রম বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে পরিচালিত হয়। পরবর্তী প্যাসিভ অংশগ্রহণকারী হলো আন্তর্জাতিক কর্পোরেশনসমূহ। বিদেশে এই সংস্থাগুলোর প্রতিনিধি অফিস রয়েছে। যখন তহবিল প্রতিনিধি অফিস থেকে মুল অফিসে স্থানান্তরিত হয়, তখন মুদ্রা রূপান্তর কার্যক্রম সঞ্চালিত হয়। বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমেও এই ধরনের কার্যক্রম সঞ্চালিত হয়।

ধাপে ধাপে, আমরা ফরেক্স মার্কেটে একজন স্বতন্ত্র বিনিয়োগকারীর ভূমিকা বোঝার কাছাকাছি যাচ্ছি। একজন স্বতন্ত্র বিনিয়োগকারীর সাধারণত বাজারে লেনদেন করার জন্য পর্যাপ্ত পুঁজি থাকে না (সর্বনিম্ন ট্রেডের আকার হল ১০০,০০০ কারেন্সি)। এই কারণেই ট্রেডাররা ব্রোকারের সহায়তা নিয়ে থাকে। তারা বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে ক্রয়/বিক্রয় চুক্তি সম্পাদন করতে পারে, কিন্তু একজন বিনিয়োগকারীর পক্ষে বিনিময় হার থেকে লাভ করা অসম্ভব। বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর বিনিময় হার দিনে একবার পরিবর্তিত হয় এবং বিক্রয় এবং ক্রয়ের হারের (স্প্রেড) মধ্যে পার্থক্য খুব বেশি থাকে।

এ কারণেই ব্রোকারেজ প্রতিষ্ঠানের আবির্ভাব ঘটেছে। মার্জিন ট্রেডিংয়ের সুবাদে একজন স্বতন্ত্র বিনিয়োগকারী সামান্য পুঁজি নিয়েও  ডিল ওপেন এবং ক্লোজ করতে পারে।

ইন্টারনেটের বিকাশের সাথে সাথে, ব্রোকারেজ ফার্মগুলিও চুক্তি সম্পাদনের কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হয়েছে এবং এখন সবাইকে পরিষেবা প্রদান করে। যার কয়েক হাজার মার্কিন ডলার আছে সে ফরেক্স মার্কেটে তার ভাগ্য পরীক্ষা করতে পারে। তবে, তাড়াহুড়ো করার দরকার নেই! কোনো একটি ডিলিং সেন্টারে অ্যাকাউন্ট খোলার আগে, ফরেক্স মার্কেট সম্পর্কে কিছু নিবন্ধ বা বই পড়া ভালো, সেইসাথে একটি ডেমো অ্যাকাউন্টে কয়েক মাস ধরে আপনার ট্রেডিং দক্ষতা অনুশীলন করা ভালো। এর মাধ্যমে, আপনি কিছুই হারাবেন না, কিন্তু অমূল্য ট্রেডিং অভিজ্ঞতা লাভ করবেন।


আপনার মতামত প্রদান করুন

ধন্যবাদ! আপনি কি আরও কিছু যোগ করতে চান?

প্রাপ্ত উত্তর আপনি কিভাবে মূল্যায়ন করবেন?

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন (ঐচ্ছিক)

আপনার মতামত আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ.
আমাদের অনলাইন সমীক্ষা সম্পূর্ণ করার সময় দেওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ৷

smile""