empty
 
 
সরবরাহ কমিয়ে গ্যাসের দাম বাড়ানোর জন্য রাশিয়াকে দায়ী করেছে যুক্তরাজ্য

সরবরাহ কমিয়ে গ্যাসের দাম বাড়ানোর জন্য রাশিয়াকে দায়ী করেছে যুক্তরাজ্য

ইউরোপে চলমান জ্বালানি সংকটের জন্য রাশিয়াকে দায়ী করা হচ্ছে, এবং লন্ডন ২০২১/২২ অর্থবছরের শরৎকাল থেকে শীতকাল, এই সময়ের মধ্যে গ্যাসের দাম বাড়ার অন্তর্নিহিত কারণ চিহ্নিত করেছে। ব্রিটিশ জ্বালানিশক্তি কোম্পানি ইডিএফ, গুড এনার্জি এবং এনার্জি ইউকে-এর সিইওরা অভিযোগ করেছেন যে রাশিয়ান শক্তি সরবরাহকারীরা পাইকারি গ্যাসের দাম উচ্চতার চরম পর্যায়ে নিয়ে গেছে।

জাতীয় জ্বালানিশক্তির বাজারের নেতারা চরম পরিস্থিতিতে ভোক্তাদের অধিকার রক্ষার জন্য জরুরী পাল্টা ব্যবস্থার সাথে প্রতিক্রিয়া জানাতে সরকারের কাছে আবেদন করেছেন। স্থানীয় জ্বালানি কর্তারা জোর দিয়ে বলেছেন যে জ্বালানি খাতটি মারাত্মক সংকটের মধ্যে রয়েছে কারণ রাশিয়ান সরবরাহকারীরা ইউরোপে তাদের চুক্তি রক্ষা করছে না, যার ফলে জ্বালানির ঘাটতি দেখা দিয়েছে। পুননবায়নযোগ্য শক্তি সংস্থা ‘গুড এনার্জি’র প্রধান নির্বাহী নাইজেল পকলিংটন বলেছেন, যুক্তরাজ্য একটি "জাতীয় সংকটের" মুখোমুখি হয়েছে। পাইকারি গ্যাস এবং বিদ্যুতের দাম গত তিন সপ্তাহে অভূতপূর্ব মাত্রায় বেড়েছে, যা জ্বালানিশিল্পের প্রতিটি ব্যবসার জন্য একটি অত্যন্ত কঠিন পরিবেশ তৈরি করেছে”। ‘ইডিএফ এনার্জি’ কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফিলিপ কমারেটের একই মত পোষণ করেছেন। তিনি পরিস্থিতিটিকে "সঙ্কটজনক" হিসাবে সংজ্ঞায়িত করেছেন এবং সতর্ক করেছেন যে এটি ইতিমধ্যে ক্রমবর্ধমান উপোযোগ বিলগুলোতে আরও চাপ সৃষ্টি করছে। স্থানীয় শক্তি সংস্থাগুলি ভোক্তাদের সমর্থন করার জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করছে এবং এখনও তাদের শুল্ক বাড়াচ্ছে না। বর্তমানে, তারা প্রচুর লোকসানে গৃহুস্থালিতে শক্তি সরবরাহ করে যাচ্ছে। এজন্য তাদের সাধুবাদ প্রাপ্য।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন রাশিয়ান সরবরাহকারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগের জবাব দিয়েছেন। তিনি এই ধরনের অভিযোগকে "রাজনৈতিকভাবে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বাজে মন্তব্য" বলে অভিহিত করেছেন এবং "আমরা শক্তিকে এক ধরনের অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করি এমন [ধারণা] সমর্থন করার মতো কিছুই নেই।" বরং, পুতিনকে দাবি করেছেন যে রাশিয়া তার চুক্তিভিত্তিক সরবরাহের দায়িত্ব পূরণ করছে। অধিকন্তু, গ্যাজপ্রম ইতিমধ্যেই ২০২১ সালে ইউরোপে তার গ্যাস সরবরাহ ১৫% বৃদ্ধি করেছে। তিনি য়ারও বলেছেন যে তেল এবং গ্যাস কোম্পানিগুলি একটি দুঃস্বপ্নের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে কারণ ইইউ দেশগুলির কর্তৃপক্ষ তাদের যথেষ্ট আর্থিক সহায়তা থেকে বঞ্চিত করছে।

পিছনে

See also

এখন কথা বলতে পারবেন না?
আপনার প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করুন চ্যাট.