العربية Azərbaycan Български 中文 Čeština English Français ქართული Deutsch Magyar हिन्दी Bahasa Indonesia ایرانی Italiano 日本語 한국어 Lietuvių Bahasa Malay اردو Polski Português Română Русский Srpski Slovenský Español ไทย Türkçe Nederlands Українська Vietnamese বাংলা Ўзбекча O'zbekcha

InstaForex Client Area

  • Personal settings
  • Access to all InstaForex services
  • Detailed statistics and reports on trades
  • Full range of financial transactions
  • System of managing several accounts
  • Maximum data protection

InstaForex Partner Area

  • Full information on clients and commissions
  • Graphic statistics on accounts and clicks
  • Webmaster instruments
  • Ready-made web solutions and wide range of banners
  • High data protection level
  • Company's news, RSS feeds, and forex informers
Be InstaForex client
Be InstaForex partner

Another Lamborghini from InstaForex!Maybe it will be you who will take the keys!

Just make a deposit of at least $1,000 to your account!

Get the best trading conditions and attractive bonus offers! We have already given 6 legendary sports cars! But it does not stop there! The next Lamborghini Huracan of the latest generation may be yours!

InstaForex – invest in your victories!

Instant account opening

Trading Platform

For mobile devices

For trading via browser

InstaForex Bonuses

InstaForex Bonuses
Make a deposit
Money withdrawal
  • মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদন (জিডিপি)
    সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশক হল জিডিপি প্রতিবেদন। সাধারণত, জিডিপি হল কোন অর্থনীতির সবচেয়ে বড় পরিমাপক সূচক। জিডিপি হল বছরের এক চতুর্থাংশ সময়ে আন্তর্জাতিক কার্যাবলী ব্যতীত অভ্যন্তরীণ সমস্ত পণ্য বা সেবামূলক পণ্যের একটি গড় আর্থিক মূল্য। এই প্রতিবেদনে দেখার মত মূল সংখ্যাটি হল জিডিপি বৃদ্ধির হার। সাধারণত, সাধারণ পর্যায় থেকে বেরিয়ে আসাটা অর্থনীতির শক্তিশালী প্রবণতার প্রমাণ দেয়। এই মাত্রার উপরে বৃদ্ধি পেলে এটাকে অস্বাভাবিক ভাবা হয় এবং উচ্চ মুদ্রাস্ফীতির পূর্বাভাস হিসেবে দেখা হয়। আবার এই মাত্রার নিচে দিকে চলে যাওয়া মানে অর্থনীতি ধীর গতিতে চলছে যা বেকারত্ব বাড়ায় এবং খরচ কমায়। এটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ যে প্রতিটি প্রাথমিক জিডিপি প্রতিবেদন চূড়ান্ত সংখ্যা নির্ধারণের পূর্বে দুবার সংশোধন করা হবে: এই অগ্রিম প্রতিবেদনটি প্রায় এক মাস পরের খসড়া প্রতিবেদন এবং এরও এক মাস পরের চূড়ান্ত প্রতিবেদনের আলোকে তৈরি হয়। বড় ধরণের সংশোধনী বাজারে অতিরিক্ত গতিবেগ তৈরি করে।
    মোট জাতীয় উৎপাদন(জিএনপি) এর সাথে মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদন (জিডিপি) মিলিয়ে ফেলবেন না। জিডিপি হল শুধুমাত্র কোন দেশের নিজস্ব ভৌগোলিক অবস্থানের মধ্যে যেকোনো জাতীয়তার পরিচয়দানকারী উৎপাদকের উৎপাদিত পণ্য ও সেবার পরিমাণকে বুঝায়। জিএনপি এর মধ্যে বিদেশী প্রতিষ্ঠানের উৎপাদনকে গণনা করা হয় না তবে দেশি কোন প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিদেশের মাটিতে উৎপাদিত পণ্য বা সেবাকে বিবেচনা করা হয়। উদাহরণ স্বরূপ, যদি কোন মার্কিন কোম্পানি ফ্রান্সে একটি চেইন স্টোর পরিচালনা করে তাহলে এসব দোকানের মাধ্যমে প্রদত্ত পণ্য ও সেবা জিডিপি তে অন্তর্ভুক্ত হবে না কিন্তু জিএনপি তে যুক্ত হতে পারে। বৈশ্বিক অর্থনীতি বড় হওয়ার কারণে যুক্তরাষ্ট্রের মত উন্নত দেশগুলোতে জিডিপি এবং জিএনপি এর মধ্যকার ব্যবধান কমে আসছে। কিন্তু ছোট, উন্নয়নশীল দেশসমূহের জন্য পার্থক্যটা বেশ বড়।
  • ভোক্তা মূল্য সূচক (সিপিআই)
    মুদ্রাস্ফীতি পরিমাপের জন্য সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয় সিপিআই। এটা একগুচ্ছ ভোগ্য পণ্য এবং সেবা ক্রয়ের বাজারে মূল্যের মাত্রা পরিবর্তনকে হিসেব করে। এই গুচ্ছের মধ্যে খাদ্য ও জ্বালানি থেকে শুরু করে অনেক ব্যয়বহুল প্রায় ২০০ রকমের হাজার হাজার পণ্য অন্তর্ভুক্ত। এই পণ্যগুলোর মূল্য নির্ধারণ করা হয় বিভিন্ন উৎস থেকে নমুনা মূল্য গ্রহণের মাধ্যমে। সিপিআই গড় সংখ্যার পাশাপাশি খাদ্য ও জ্বালানির মত দ্রুত উঠানামার পণ্য ব্যতীত সিপিআই মূল সংখ্যার দিকে নজর দেয়া এবং প্রকৃত মুদ্রাস্ফীতির কাছাকাছি সংখ্যা পরিমাপ করার খুব জরুরী। সিপিআই সংখ্যার অধিকাংশ প্রতিবেদনের মধ্যে গড় এবং মূল উভয় সংখ্যাই থাকে।
    সুসমন্বিত সিপিআই (এইচআইসিপি) ও আছে। এটা হল ইউরোপিয়ান কেন্দ্রীয় ব্যাংক (ইসিবি) এর মুদ্রাস্ফীতি এবং মূল্যের স্থিরতার নির্দেশক। এটির নাম "ভোক্তা মূল্য সূচক" যা ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ভুক্ত রাষ্ট্রসমূহের পদ্ধতির আলোকে তৈরি করা যায়। প্রতিটি ইউরোপিয়ান ইউনিয়নভুক্ত দেশের মাধ্যমে এইচআইসিপি প্রস্তুত করা হয় মুদ্রাস্ফীতি পরিমাপে সহায়তা এবং ইসিবি কে মুদ্রানীতি তৈরিতে পরামর্শ প্রদান করার জন্য। এছাড়াও এইচআইসিপি ব্যবহৃত হয় ইউরোপিয়ান ইনডেক্স অব কাস্টমার প্রাইসেস এর ভিত্তিতে যা গৃহস্থালির খরচের ভিত্তিতে পরিমাপ করা হয়।
  • উৎপাদনকারী মূল্য সূচক (পিপিআই)
    মুদ্রাস্ফীতি পরিমাপের জন্য দুটি মৌলিক পদ্ধতির একটি হল পিপিআই (অন্যটা হল সিপিআই)। এই সূচকের মাধ্যমে পাইকারি হারে পণ্যের মূল্য পরিমাপ করা হয়। সুতরাং, সিপিআই যখন গ্রাহকদের মাধ্যমে পণ্যের খরচ পরিমাপ করে তখন পিপিআই দেখায় উৎপাদনকারীরা পণ্য থেকে কি পরিমাণ মুনাফা করে থাকে। পিপিআই এর মাধ্যমে পরিমাপ করার মত ৩ প্রকার পণ্য আছে: প্রাথমিক পণ্য, মধ্যম পর্যায়ের পণ্য এবং পরিণত পণ্য। প্রাথমিক পণ্য হল কোন পণ্য উৎপাদনের জন্য ব্যবহৃত কাঁচামাল, মধ্যম পর্যায়ের পণ্য হল বড় কোন পণ্য তৈরির উপাদান এবং প্রস্তুতকৃত পণ্য হল এমন কিছু যা পরিশেষে পুনবিক্রেতার নিকট বিক্রয় করা হয়। তৈরিকৃত পণ্যের তথ্য সবচেয়ে গভীরভাবে নজরে রাখা হয় কারণ এগুলোর জন্যই মূলত গ্রাহকেরা খরচ করে।
    মূল পিপিআই হল বিষয়গুলোকে খাদ্য ও জ্বালানি ক্ষেত্রের পণ্য ও এবং সেবা উৎপাদনকারীর মাধ্যমে পরিমাপ।
  • কর্মসংস্থান সূচক
    সামষ্টিক অর্থনীতির অন্যতম প্রধান নির্দেশক হল বেকারত্বের হার যা সমস্ত শ্রমশক্তির তুলনায় ১৮ বছরের বেশি বয়স্ক বেকারের সংখ্যার শতকরা হারকে নির্দেশ করে। এটা এলোমেলো পদ্ধতিতে আনুমানিক ৬০,০০০ গৃহস্থালি, ৩৭৫,০০০ প্লান্টের নমুনার ভিত্তিতে জরিপ করা হয়। বেকারত্বের হার গণনা করা হয় বেকার এবং স্বাবলম্বী জনসংখ্যার যোগফলকে বেকারের সংখ্যা দিয়ে ভাগ করে প্রাপ্ত ভাগফলের ভিত্তিতে। বেকারত্বের স্বাভাবিক হার বিবেচনা করা হয় মোট জনশক্তির ৪-৫%। বেতন বৃদ্ধির কারণে মুদ্রাস্ফীতির হার বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। বেকারত্বের স্বল্পতার কারণে বেতন দ্রুত বৃদ্ধি পায় বিশেষ করে যখন মুদ্রাস্ফীতি বেড়ে যায়।
    এছাড়াও এজাতীয় আরও অনেক প্রতিবেদন আছে যেমন- গড় কর্মসপ্তাহ এবং ঘণ্টাপ্রতি গড় উপার্জন। এটা মনে রাখা জরুরী যে কর্মজীবি মানুষই সমগ্র জনসংখ্যা নয়; এরা মোট জনসংখ্যার একটি অংশ যারা নিদিষ্ট একটি শ্রেণীর আওতাধীন। যেহেতু ঘণ্টা প্রতি গড় আয় মুদ্রাস্ফীতিতে প্রভাব ফেলে সেহেতু বেকারত্বের চিত্র হল অর্থনীতির একটি অন্যতম বিবেচক।
    অপ্রাতিষ্ঠানিক কর্মসংস্থান পরিবর্তন হিসেবে পরিচিত অপ্রাতিষ্ঠানিক মজুরি হল প্রধান নির্দেশক যা গত মাসে যুক্ত হওয়া কাজ পরিমাপ করে। এই প্রতিবেদনটি প্রাতিষ্ঠানিক কাজের বাইরে কারণ তারা কোন সাধারণ বেতনভুক্ত কর্মী নয়, তারা মৌসুমি কর্মচারী।
    এসব আদর্শ প্রতিবেদনের সাথে মার্কিন পরিসংখ্যান প্রথমবারের মত বেকার ভাতা গ্রহণকারী জনসংখ্যার একটি সাপ্তাহিক প্রতিবেদন দাখিল করে। এই সংখ্যা চাকরির বাজারের অবস্থা বুঝতে সহায়তা করে। যুক্তরাষ্ট্রের আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেদন হল এডিপি জাতীয় কর্মসংস্থান প্রতিবেদন যা স্বয়ংক্রিয় তথ্যকেন্দ্র (এডিপি) এর মাধ্যমে ৫০০,০০০ এর বেশি সংখ্যক প্রতিষ্ঠানের বেতন সংক্রান্ত তথ্য ব্যবহার করে যুক্তরাষ্ট্রের কর্মসংস্থানের পরিবর্তনকে পরিমাপ করে। এই তথ্য সামষ্টিক অর্থনীতির পরামর্শক, এলএলসি সংগ্রহ করে প্রতিবেদন তৈরির মাধ্যমে মোট সংখ্যা প্রদর্শনের পাশাপাশি কোম্পানির আকার, পণ্য বা সেবা, উৎপাদনশীল বা অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সমন্বয় তৈরি করে।
  • খুচরা বিক্রয় সূচক
    খুচরা বিক্রয় সূচকের মাধ্যমে খুচরা ব্যবসায়ীদের মধ্যে পণ্য বিক্রির পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়। এই প্রতিবেদন গত মাসের তথ্যের প্রতিচ্ছবি। অনেক বিশ্লেষক গাড়ি ব্যতীত অন্যান্য সংখ্যার দিকে নজর দেয়ার পরামর্শ দেয় যার অর্থ গাড়ি বিক্রির সংখ্যার উঠানামা এই হিসেবের বাইরে থাকে। এই সংখ্যাটি সমস্ত বোর্ডের ক্রয় প্রবণতাকে ভালোভাবে পরিমাপ করে। এই প্রতিবেদনের মধ্যে সেবার উদ্দেশ্যে ব্যয় হওয়া অর্থ অন্তর্ভুক্ত নয়। সুতরাং এটা মাসের সমস্ত খরচের অর্ধেকের কম পরিমাণ উপস্থাপন করে। যদিও, এই সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও এই সংখ্যাটি কোন রাষ্ট্রের অর্থনীতির একপ্রকার সূচক হিসেবে গণ্য করা হয়।
  • ভোক্তার নির্ভরতা সূচক
    ভোক্তার নির্ভরতাকে অর্থনৈতিক চিত্রে একটি অত্যাবশ্যকীয় উপাদান হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এই প্রতিবেদনটি মূলত কোন দেশের জাতীয় অর্থনীতির উপর ভোক্তাদের আত্মবিশ্বাস এবং খরচ করার প্রবণতাকে পরিমাপ করে দেখায়। জাতীয় অর্থনীতি এবং ভোক্তাদের খরচের সক্ষমতা তারা যে কত আত্মবিশ্বাসের সাথে অনুভব করে তা এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে পরিমাপ করা যায়। এই ধারণাটা এমন যে, মানুষ তাদের উপার্জনের নিশ্চয়তায় যত বেশি আত্মবিশ্বাসী হবে তত বেশি তারা ক্রয়ে উৎসাহিত হয়। এই ভোক্তার নির্ভরতা সূচক তৈরির জন্য ৫০০০ বাড়ির মানুষকে নমুনা জনসংখ্যা হিসেবে গ্রহণ করা যায় এবং শ্রম বাজার পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপন সংখ্যাকে বিবেচনা করা হয়। অনেক বিশ্লেষক বিশ্বাস করে যে গ্রাহকের উচ্চ আত্মবিশ্বাস অর্থনীতির জন্য ক্ষতিকর অনেক কিছুরই সমাধান তৈরি করে। যখন অধিকাংশ তথ্য একটি অতিমন্দার অর্থনীতিকে চিহ্নিত করে তখন গ্রাহকের উচ্চ আত্মবিশ্বাস এবং খরচের গতি ক্ষতিপূরণ করতে সহায়তা করে।
  • বেইজ বুক
    বেইজ বুক হল ফেডারেল ওপেন মার্কেট কমিটির একটি অংশের মিটিঙের জন্য প্রস্তুতি যা বছরে আটবার প্রকাশিত হয়। এই প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয় দুই বুধবার প্রতিটি এফওএমসি মিটিং এর পূর্বে বেলা ২:১৫ টায়। এই বইটি প্রতিটি ফেড অঞ্চলে অর্থনৈতিক পরিস্থিতির সংক্ষিপ্ত বিবরণ। এই প্রতিবেদনটিকে অধিকাংশ সময় ফেডারেল রিজার্ভের আগত মিটিঙে সম্ভাব্য কর্মসূচি বোঝার নির্দেশক হিসেবে দেখা হয়।
  • টেকসই পণ্যের চাহিদা
    টেকসই পণ্যের চাহিদা' প্রতিবেদনটি পরিমাপ করে দেখায় যে, যুক্তরাষ্ট্রের কত বেশি মানুষ টেকসই পণ্য (যেসব পণ্য ৩ বছরেরও বেশি সময় টিকে থাকে) কেনাকাটায় খরচ করে। এই প্রতিবেদনটি তৈরি করা হয় প্রতি মাসের ২৬ তারিখের ৮:৩০ এএম এর দিকে এবং প্রস্তুতকারী শিল্পকারখানাগুলোর ভবিষ্যৎ কর্মকাণ্ডের প্রতি দৃষ্টি প্রদান করা হয়। এই প্রতিবেদনগুলো শিল্প অনুযায়ী ভাগ করা হয় যার ফলে তাৎক্ষণিক প্রতিরক্ষাজনিত খরচকেও চিহ্নিত করা সম্ভব হয়। বিনিয়োগকারীরা সামগ্রিক অবস্থার উপর দৃষ্টি রাখে এবং অধিকাংশ শিল্পের বাজার পরিস্থিতি সাধারণ গতিতে চলতে থাকে।
  • কারখানা কার্যক্রম
    এই নির্দেশকটি টেকসই এবং ক্ষণস্থায়ী পণ্যের প্রতি শিল্পকারখানাগুলোর চাহিদার সংকেত দেয়। এই চাহিদা বৃদ্ধি সম্ভাব্য উৎপাদন কার্যাবলী বৃদ্ধি করে যেখানে এটা কমে যাওয়া কয়েক ধাপ কমিয়ে দেয়। যে কারণে কারখানা কার্যক্রম বাড়লে মুদ্রা হার বাড়ে কিন্তু কার্যক্রম কমে গেলে মুদ্রা হার কমে। এই নির্দেশকটির মধ্যে টেকসই এবং ক্ষণস্থায়ী উভয় প্রকার পণ্যই থাকে। টেকসই পণ্যের কার্যক্রমের মধ্যে এমন পণ্য থাকে যেগুলো অন্তত ৩ বছরের বেশি দিন টেকে (যেমন: গাড়ি, আসবাবপত্র, গৃহস্থালি পণ্য) এবং এগুলোর সংখ্যা ৫০ এর বেশি। ক্ষণস্থায়ী পণ্যের মধ্যে আছে খাদ্য, পোশাক, হালকা শিল্প পণ্য ইত্যাদি। কারখানা কার্যক্রমের প্রতিবেদন মূলত উৎপাদন কার্যক্রমের বৈশিষ্ট্য নির্ণয় করে। সূচকের ঊর্ধ্বগতি অর্থনীতির জন্য ভাল কিন্তু সূচকের নিম্নগতি অর্থনীতির গতি কমে যাওয়ার প্রতীক।
  • চলতি অ্যাকাউন্ট
    চলতি অ্যাকাউন্ট হল ব্যালেন্স (যেমন: মোট রপ্তানি আয় থেকে আমদানি খরচ বাদ দিয়ে পাওয়া যায়), ফ্যাক্টর ইনকাম (বিদেশী বিনিয়োগ জনিত আয় থেকে বিদেশী বিনিয়োগ জনিত ব্যয় বাদ দিয়ে পাওয়া যায়) এবং নগদ স্থানান্তরের সমষ্টি। চলতি অ্যাকাউন্ট ব্যালেন্স হল কোন দেশের বৈদেশিক বাণিজ্যের প্রকৃতি বোঝার মূল পরিমাপক। চলতি অ্যাকাউন্টের উদ্বৃত্ত কোন দেশের বৈদেশিক বাণিজ্যের প্রকৃতি বোঝার জন্য প্রধান দুইটি উপাদানের মধ্যে একটি (আরেকটি হল নেট মূলধনের অতিরিক্ত)। চলতি অ্যাকাউন্টের উদ্বৃত্ত কোন দেশের মোট বৈদেশিক সম্পদের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয় এবং চলতি অ্যাকাউন্টের ঘাটতি তার ব্যতিক্রমটি ঘটায়। সরকারি এবং বেসরকারি উভয় প্রকার পরিশোধই এই গণনার অন্তর্ভুক্ত। এটাকে চলতি অ্যাকাউন্ট বলা হয় কারণ পণ্য এবং সেবা সাধারণত চলতি সময়কালেই নিঃশেষ হয়।
  • প্রাথমিক বেকারত্বের দাবি
    এই সাপ্তাহিক প্রতিবেদনটি কর্মসংস্থান বিভাগে বেকারত্বের আবেদন সংখ্যাকে নির্দেশ করে। এটা একটি অত্যাধুনিক পদ্ধতি কিন্তু অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অনেকটাই সন্দেহজনক প্রবণতা। প্রাথমিক বেকারত্বের দাবি বৃদ্ধি বা হ্রাস অর্থনীতিকে জোরালো বা স্থবির করে। এক্ষেত্রে, মার্কেটে এই প্রতিবেদনের প্রভাবটি কম যদিও ট্রেডিং এর আচরণে প্রভাব ফেলার মত ঘটনা কখনো ঘটতেও পারে। সাপ্তাহিক তথ্য তারতম্যের কারণে অধিকাংশ বিশ্লেষকগণ মার্কেটের প্রকৃত চিত্র পর্যবেক্ষণের জন্য চার সপ্তাহের গড় প্রবণতা পর্যবেক্ষণ করে। সাধারণত এই প্রবণতার ব্যাপক পরিবর্তন দেখতে হলে শক্তিশালী ওঠানামা (প্রায় ৩০ হাজার) খুব গুরুত্বপূর্ণ। প্রাথমিক বেকারত্বের একটানা অবনতি অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও শ্রম বাজারের উন্নতির সংকেত বহন করে এবং এর ফলে ডলারের মূল্য বৃদ্ধি পায়। ৪০০,০০০ এর বেশি সংখ্যা শ্রম বাজারের সমস্যাকে নির্দেশ করে।
  • টানক্যান জরিপ
    বিভিন্ন অর্থনৈতিক ক্ষেত্রের প্রায় ৮-১০ হাজার ব্যবসায়ীর মধ্যে এই জরিপ পরিচালনা করা হয়। ১০-১৫ টি বড়, ৩০-৩৫ টি মধ্যম এবং ৫০-৫৫ টি ছোট ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে জরিপ চালিয়ে জানতে চাওয়া হয় নিম্নোক্ত বিষয়সমূহ: ১) ব্যবসায় পরিবেশ, ২) উৎপাদন ও বিক্রয়, ৩) চাহিদা ও যোগান, ৪) মূল্যের স্তর, ৫) লাভ, ৬) সরাসরি বিনিয়োগ, ৭) কর্মসংস্থান, ৮) অর্থবছরের পরিস্থিতি। শীর্ষ ব্যবস্থাপকদের মধ্যে আলাদাভাবে জরিপ করা হয়। মূল্যায়ন পদ্ধতি: ডিফিউশন সূচক (ডিআই) — «অনুকূলে» বিয়োগ «প্রতিকূল», %পয়েন্ট, শতকরা পরিবর্তন — পূর্ববর্তী বছরের একই সময়ের সাথে মিল রেখে সূচকের পরিবর্তন। এই জরিপটি অর্থনৈতিক পরিস্থিতির উন্নতির সংকেত দেয় এবং এটা জেপিওয়াই এর জন্য সুবিধাজনক।
  • জেউ জরিপ
    জেউ জরিপ হল বিনিয়োগকারীদের আত্মবিশ্বাসের মূল নির্দেশক। এটা ৩৫০ জন বিশ্লেষক এবং প্রাতিষ্ঠানিক বিশ্লেষকের ভোটাভোটির ভিত্তিতে গণনা করা হয়। এই নির্দেশকটি যেসব বিশ্লেষক ৬ মাসের মধ্যে জার্মানির আসন্ন অর্থনৈতিক অগ্রগতি বিষয়ক আশাবাদী এবং যারা নিরাশাবাদী তাদের মধ্যে তফাৎ তৈরি করে। যদি অধিকাংশ তথ্য প্রদানকারীরা আশাবাদী হয় তাহলে ফলাফল শূন্যের বেশি হবে এবং নিরাশাবাদী হলে শূন্যের কম হবে। উদাহরণ স্বরূপ: যদি বিশ্লেষকদের মধ্যে ৩০ জন আশাবাদী, ৩০ জন স্বাভাবিক এবং ৪০ জন নিরাশাবাদী হয় তাহলে ফলাফল হবে -১০। এই জরিপ ব্যবহৃত হয় জার্মান অর্থনীতির সম্ভাব্যতা যাচাই করার জন্য। জেউ জরিপের অগ্রগতি ইউরো অগ্রগতিকে চিহ্নিত করে।
  • ব্যক্তিগত ভোগজনিত ব্যয় (পিসিই)
    পিসিই হল ভোক্তার পণ্য এবং সেবার মূল্য পরিবর্তন পরিমাপক। ব্যক্তিগত ভোগজনিত ব্যয়ের মধ্যে আছে গৃহস্থালির প্রকৃত এবং আরোপিত খরচ; এই পরিমাপের মধ্যে আছে টেকসই, স্বল্পস্থায়ী পণ্য ও সেবা।
    সিপিআই এর মত পিসিই হল বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এর ব্যুরো অব ইকোনমিক্স উপস্থাপিত একপ্রকার প্রতিবেদন যা ব্যক্তিগত আয় প্রতিবেদনের অংশ।
    পিসিই হল একটি ভালোভাবে আনুমানিক প্রতিবেদন বাজারে যার ছোট খাটো প্রভাব আছে।
  • ব্যক্তিগত আয়
    আয়কর পরিশোধের পূর্বে মোট ঘরোয়া আয়কে ব্যক্তিগত আয় বলে। এর মধ্যে আছে ঘর ভাড়া, সুদ, সরকারি প্রেষণা, বিনিয়োগের মুনাফা ইত্যাদি। ব্যক্তিগত আয় গ্রাহকদের চাহিদা নির্ণয় করে। এটা ব্যক্তিগত খরচের সাথে সমন্বয় করা হয়। ব্যক্তিগত আয় বৃদ্ধির কারণে খুচরা বেচাকেনা বেড়ে যায় যা অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে এবং মার্কিন ডলারের ঊর্ধ্বগতিকে তরান্বিত করে।
  • সক্ষমতা ব্যবহার
    এই নির্দেশকটি শিল্পের সক্ষমতা ব্যবহারের পরিমাপক। এটা হল সমগ্র উৎপাদনের সাথে সর্বোচ্চ সক্ষমতার অনুপাত। এটা অর্থনীতির বর্তমান পরিস্থিতি প্রদর্শন করে। এই নির্দেশকের অপশন মূল্য ৮১.৫%। ৮৫% এর বেশি হলে এই সংকেত দেয় যে অর্থনীতি অতিরিক্ত চাপে আছে। কোন স্বল্প পরিবর্তনের কারণে মুদ্রা এবং অর্থনীতি দুর্বল থাকে।
  • ভোক্তার আত্মবিশ্বাস বিষয়ে মেসিগান বিশ্ববিদ্যালয়ের সমীক্ষা
    এটা হল ভোক্তার আত্মবিশ্বাস বিষয়ে মেসিগান বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি মাসিক সমীক্ষা। আসলে এটার মাধ্যমে অর্থ ব্যয়ে গ্রাহকদের স্বদিচ্ছা পরিমাপ করা হয়। এটা গ্রাহকদের পরিস্থিতি বোঝার জন্য একটি শীর্ষস্থানীয় পরিমাপক। আসলে অর্থ খরচের ক্ষেত্রে গ্রাহকের স্বদিচ্ছা পরিমাপ করা হয়। এটা ভোক্তার পরিস্থিতির জন্য সেরা নির্দেশক। এটার মধ্যে দুইটি উপাদান আছে: মনোভাব (সমগ্র সূচকের ৪০% ভাগ) এবং প্রত্যাশা (বাকি ৬০%)। প্রায় ৫০০ ভোক্তা বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ অর্থনীতির ৫টি প্রশ্নের উত্তর দেয় (যার মধ্যে দুই থেকে তিনটি প্রশ্ন সংগতিপূর্ণ)। প্রথম দুইটি প্রশ্নের উত্তর চলমান পরিস্থিতির সমীক্ষায় প্রকাশ করে যেখানে শেষের তিনটি প্রশ্ন প্রত্যাশার সূচক তৈরি করে। এই সূচকের বৃদ্ধি অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সংকেত দেয় এবং সূচকের অবনতি অর্থনৈতিক মন্দাভাবের সংকেত দেয়। এই সূচক মার্কিন ডলারের মূল্য বৃদ্ধির কারণ।
  • ফিলাডেলফিয়া ফেড সূচক
    এই সূচক যুক্তরাষ্ট্রের ফিলাডেলফিয়া থেকে প্রায় ১০০ জন উৎপাদনকারীর বিষয়ে জরিপ করে যা বর্তমান এবং আগামী ছয় মাসের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি বিষয়ে তাদের আচরণ নির্দেশ করে। এই সূচক সংকেতের বৃদ্ধির তুলনায় ধীর গতিতে চলবে যদি এটা শূন্যের নিচে হয়। ৬ মাসে পর প্রকাশিতব্য আইএসএম সূচক (যোগান ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠানের সূচক) থেকে কি আশা করা যায় এই সূচক তা দেখিয়ে দেবে। এই সূচকটি দেখাতে পারে কিছু দিন পর প্রকাশিতব্য আইএসএম (ইন্সটিটিউট অব সাপ্লাই ম্যানেজমেন্ট ইনডেক্স) সূচক থেকে আমরা কি আশা করতে পারি। এই সূচক মার্কিন ডলার বৃদ্ধির ট্রিগার বৃদ্ধি করে।
  • শিকাগো পিএমআই
    শিকাগো পিএমআই হল শিকাগো শিল্প ক্রয় ব্যবস্থাপকদের মধ্যে একপ্রকার ভোটাভোটি। এটা উৎপাদন কার্যাবলী, উৎপাদন মূল্য এবং বিনিয়োগসমূহকে চিহ্নিত করে। ৫০ এর নিচে সূচকের অবস্থান অর্থনীতির মন্দাভাবকে প্রকাশ করে। সূচকটি অনেক গভীর ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হয়। বাজারে এটার একটি তাৎপর্যপূর্ণ প্রভাব আছে কারণ এটা আইএসএম উৎপাদন সূচক সম্পর্কে ধারণা প্রদান করে। এই প্রতিবেদনটি প্রতি মাসের শেষ কার্যদিবসের বেলা ৩:৩০ টার(জিএমটি) সময় প্রকাশ করা হয়।
  • ব্যক্তিগত খরচ
    ব্যক্তিগত খরচ হল একটি সামগ্রিক পরিমাপ যার মাধ্যমে প্রতিমাসে টেকসই পণ্য, ভোগ্য পণ্য এবং সেবা ক্রয়ের পেছনে ভোক্তার খরচকে পরিমাপ করা হয়। বেশি পরিমাণ ব্যক্তিগত খরচ বলতে বুঝায় গ্রাহকরা পণ্য ও সেবা ক্রয় করছে, অর্থনীতিতে শক্তি প্রদান করছে এবং উৎপাদনের পরিমাণ বৃদ্ধি করছে। এই প্রতিবেদনটি মূলত তৈরি করা হয় মুদ্রাস্ফীতির চাপ পরীক্ষা করার জন্য। উচ্চমাত্রায় ভোগ ও উৎপাদন চলতে থাকলে গড় মূল্য বৃদ্ধি পেতে পারে। অবশ্যই, ফেড তাদের মুদ্রাস্ফীতির প্রাথমিক পরিমাণ হিসেবে পিসিই থেকে তৈরি মুদ্রাস্ফীতি পরিমাপ করে।
    অন্য দিকে ব্যক্তিগত খরচের স্বল্পতার কারণে উৎপাদন এবং অর্থনৈতিক মাত্রার নিম্নগতি শুরু হয়।
  • আইএসএম উৎপাদন সূচক
    এই সূচকটি ইন্সটিটিউট অব সাপ্লাই ম্যানেজমেন্টের মাধ্যমে ৩০০ এর বেশি উৎপাদন শিল্পের উপর জরিপের ভিত্তিতে তৈরি হয়। আইএসএম উৎপাদন সূচক কর্মী, উৎপাদন, আবিষ্কার, নতুন নির্দেশনা এবং পরিবেশক প্রদানকারীদেরকে পর্যবেক্ষণ করে।
    আইএসএম প্রস্তুত সূচক পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীরা জাতীয় অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে ভালোভাবে বুঝতে পারবে। যখন এই সূচকটি বাড়ে তখন বিনিয়োগকারীরা ভালোভাবে বুঝতে পারে যে উচ্চ কর্পোরেট প্রোফাইলের কারণে স্টক মার্কেট বৃদ্ধি পাওয়া উচিৎ। অপরপক্ষ বন্ড মার্কেট নিয়ে চিন্তা করতে পারে যা ক্রমবৃদ্ধিমান মুদ্রাস্ফীতির ধারণার কারণে আইএসএম তৈরির সূচক বাড়িয়ে দেয়
  • ক্রয় ব্যবস্থাপকদের সূচক (পিএমআই)
    এই অর্থনৈতিক নির্দেশকগুলো বেসরকারি কোম্পানিসমূহের মাসিক জরিপ থেকে পাওয়া যায়। এগুলো কোন দেশের সেবা এবং উৎপাদন ক্ষেত্রের অভ্যন্তরীণ ব্যবসায়ের ভেতরের পরিস্থিতি প্রকাশ করে। ৫০ থেকে এই সূচকের অংককে একটি সূচক হিসেবে উল্লেখ করা হয় যা ব্যবসায় শর্তাবলির বড় রকমের পরিবর্তন আনে। ৫০ থেকে যত বেশি বড় পার্থক্য হবে ব্যবসায় পরিস্থিতির তত বড় পরিবর্তন হবে।
  • নতুন বাড়ি বিক্রয়
    এই সূচক গত মাসে বিক্রি হওয়া নতুন বাড়ির সংখ্যাকে প্রকাশ করে। বাড়ি বিক্রি বেড়ে যাওয়া মানে আবাসন খাতের দ্রুত অগ্রগতি যা সমগ্র অর্থনীতিতে ভাল প্রভাব ফেলে। নতুন বাড়ি বিক্রির সূচক আবাসন খাতের প্রবণতা তৈরি করে যা ভবন তৈরির অনুমতি পাওয়া এবং তৈরির কাজ সম্পন্ন করার প্রাথমিক পর্যায় এবং বৃহদাকারে অর্থনৈতিক অগ্রগতি নির্দেশক হিসেবে কাজ করে।
    নমুনা সংখ্যা হল বাড়ি বিক্রিতে গত মাসের চেয়ে কম পরিবর্তিত সংখ্যা।
  • গৃহনির্মাণে অনুমতি
    এই নির্দেশকটি এক মাসের মধ্যে গৃহ নির্মাণের অনুমোদন প্রাপ্তির সংখ্যা প্রকাশ করে। নতুন গৃহ নির্মাণের অনুমতির সংখ্যা বেশি হওয়ার অর্থ ক্রমবর্ধমান গৃহনির্মাণ শিল্পের বিকাশ ঘটা। কারণ গৃহনির্মাণ সাধারণত অর্থনৈতিক উন্নয়নের সময় উন্নয়নের জোয়ার আশা করে এবং মন্দাভাব চলাকালে হ্রাস পায়। এই সংখ্যাটি অন্যান্যদের মাধ্যমে ব্যবহৃত হয় অর্থনীতিতে সামগ্রিকভাবে। সামগ্রিক ভাবে অর্থনৈতিক অগ্রগতি সম্পর্কে ভবিষ্যৎবাণী করার জন্য এই হিসেবটি অন্যান্য পরিসংখ্যানের হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। গৃহনির্মাণ শিল্পের একটি শক্তিশালী বাজার গ্রাহকদের মধ্যে খরচের প্রবণতাকে প্রকাশ করে। হেডলাইনের সংখ্যা হল গত মাস থেকে নতুন ভবন নির্মাণের অনুমতি পাওয়ার শতকরা হারে সাময়িকভাবে সমন্বিত পরিবর্তন।
  • গৃহ নির্মাণ আরম্ভ
    এই নির্দেশকটি গৃহ নির্মাণ শিল্পের অগ্রগতিকে প্রকাশ করে। গৃহ নির্মাণ শুরুর প্রতিবেদনটি ভবন নির্মাণ ক্ষেত্র এবং গৃহায়ন শিল্পের শক্তিশালী অবস্থাকে নির্দেশ করে। অর্থনীতিবিদগণ গৃহ নির্মাণ শুরুর বিষয়টাকে ব্যবসায় পরিবেশ পরিবর্তনের জন্য একপ্রকার সংকেত হিসেবে দেখে। অর্থনৈতিক মন্দাভাব চলাকালে গৃহ নির্মাণ শুরুর সংখ্যা কমতে থাকে এবং অর্থনৈতিক অগ্রগতির শুরুতে দ্রুত বাড়তে থাকে; এভাবেই বেশি সংখ্যক গৃহ নির্মাণ আরম্ভ হলে শক্তিশালী অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।
    শিরোনাম সংখ্যাটি গৃহ নির্মাণ আরম্ভের শতকরা পরিবর্তনের হার।
  • পুরাতন বাড়ি বিক্রয়
    পুরাতন বাড়ি বিক্রয় হল পূর্ববর্তী বছরগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রে তৈরি হওয়া বাড়িগুলোর বিক্রির সংখ্যা। এই প্রতিবেদনটি আবাসন মার্কেটের একটি সুষ্ঠু, স্বাভাবিক পরিস্থিতির পাশাপাশি সামগ্রিক অর্থনীতি চক্রের প্রভাব প্রকাশ করে এবং অর্থনীতিতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশক হতে পারে কারণ অর্থনীতিতে আবাসন ক্ষেত্র খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
    পুরাতন বাড়ি বিক্রয় জিডিপিতে গণনা করা হয় না, এবং সেগুলো মার্কিন অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলতে পারে। পুরাতন বাড়ি বিক্রেতাগণ প্রায়সময় এটা মূলধন উপার্জনে ব্যবহার করতে পারে যা অর্থনীতিকে বাড়িয়ে দেয়। উচ্চ মাত্রার ভোক্তাদের ব্যয় অনেকসময় মুদ্রাস্ফীতির চাপ তৈরি করে এমনকি সেগুলো যদি অর্থনীতির অগ্রগতিতে অবদান রাখেও।
    পুরাতন বাড়ি বিক্রয়ের প্রতিবেদন নতুন বাড়ি বিক্রি বা তৈরির অনুমোদনের প্রতিবেদনের মত এতটা কার্যকারী নয়। সময়ের ব্যবধানে বিদ্যমান বাড়ি বিক্রি কমে যায়, বাজার পরিস্থিতি পরিবর্তিত হতে পারে। যতদিনে পুরাতন বাড়ি বিক্রয়ের তথ্য প্রকাশিত হয়, ততদিনে বাজার পরিস্থিতি পরিবর্তিত হয়ে যায়।
  • ভোক্তার আত্মবিশ্বাস
    ভোক্তার আত্মবিশ্বাস হল অর্থনীতির জন্য একপ্রকার জনপ্রিয় পরিমাপক। এই সংখ্যাটি হাজার হাজার ভোক্তাদের নিকট থেকে তাদের ব্যক্তিগত খরচের ধরণ এবং মুদ্রাস্ফীতির প্রভাব পরিমাপ করতে শেখায়। সাধারণভাবে, ভোক্তার খরচের আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং মুদ্রাস্ফীতি উভয়ই বাড়িয়ে দেয়।
    মাত্রাটি ৫০ এর উপরে থাকা মানে ভোক্তার প্রবণতা হ্যাঁ বোধক কিন্তু ৫০ এর নিচে থাকা মানে না বোধক। ব্যবধান যত বেশি হবে আত্মবিশ্বাস তত শক্তিশালী হবে।
  • বাণিজ্যের উদ্বৃত্ত
    বাণিজ্যের উদ্বৃত্ত হল পণ্যের আমদানি এবং রপ্তানির মধ্যকার ব্যবধান। আমদানির পরিমাণ রপ্তানির চেয়ে বেশি হলে সেটাকে বাণিজ্যের ঘাটতি বলে। যখন রপ্তানির পরিমাণ আমদানির পরিমাণের চেয়ে বেশি হবে তখন বাণিজ্যের উদ্বৃত্ত তৈরি হবে। পণ্য রপ্তানির বিনিময়ে কোন দেশে যে তহবিল আসে তা বাণিজ্যের উদ্বৃত্তের মাধ্যমে বোঝা যায়।
    মাঝে মাঝে বাণিজ্যের উদ্বৃত্তকে পণ্য এবং সেবা খাতে বিভক্ত করা হয়।
    বাণিজ্যের উদ্বৃত্ত চলতি অ্যাকাউন্টের সাথে অংশবিশেষ যোগ করে।
কোনো ঝুঁকি ও বিনিয়োগ ছাড়াই ট্রেডিং শুরু করুন
$১০০০ এর নতুন স্টার্টআপ বোনাস ব্যবহার করে